ডেনভার চিড়িয়াখানায় চিতা


ডেনভার সিটি পার্কে ৮০ একর জায়গা জুড়ে ডেনভার চিড়িয়াখানার বিস্তার। একশ বছরের বেশী আগে প্রতিষ্ঠিত চিড়িয়াখানাটি আকারে বড় নয়। তবে আকর্ষণীয় জীবজন্তুর সমাহার এবং তাদের সুন্দর ব্যবস্থাপনা ও প্রদর্শনীর জন্য চিড়িয়াখানাটি দর্শনার্থীদের মন জয় করতে সক্ষম।

চিতা-এনায়েতুর রহীম

চিড়িয়াখানার অন্যতম আকর্ষণ আফ্রিকার চিতা। চিতার গায়ে লেপার্ডের মতই গোল গোল কালো বৃত্তাকার স্পট রয়েছে। তবে লেপার্ডের সাথে এদের প্রধান পার্থক্য দৈহিক গড়নে। চিতা আকারে শীর্ণকায়, পেটের অংশটি যথেষ্ট চাপা যে কারণে দাঁড়ানো অবস্হায় পাশে থেকে এদের শরীরের নিচের অংশ ঢেউয়ের মতো  দেখায়। অন্যদিকে লেপার্ড অনেকটা স্বাভাবিক বাঘের মতো, পেট চিতার মতো সরু বা চাপানো নয়।

চিতার মুখের গড়নেও লেপার্ডের সাথে পার্থক্য রয়েছে। এদের চোখ থেকে দুটি কালো দাগ নাকের দুপাশ দিয়ে নেমে এসে মুখের দুপাশে শেষ হয়েছে। লেপার্ডের মুখে এরকম কোন দাগ নেই। তাছাড়া সামনে থেকে দেখলে লেপার্ডের মুখেও কালো কালো গোলাকার স্পট আছে কিন্তু চিতার নেই।

ছবিটি তোলা হয়েছে ২০১৩ সালের ২৪ ডিসেম্বর বিকাল ৪টার সময়। চিতার মুখের দিকে সরাসরি রেখাকে লম্ব ধরলে সূর্যের অবস্থান ছিল প্রায় ৪০ ডিগ্রি বামে।

এক্সপোজার ১/২৫০ (এক সেকেন্ডের ২৫০ ভাগের এক ভাগ)
এক্সপোজার বায়াস শুন্য
এপারচার ৪ (চার)
ফোকাল লেন্থ ৩০০ মিলিমিটার
লেন্স ক্যানন ৩০০মিমি এফ ৪ এল
ক্যামেরা ক্যানন ৪০ডি

বিস্তারিত এক্সিফ ড্যাটার জন্য এখানে দেখুন।

চিতাটি আনুমানিক ৩০ গজ দূরে ছিল। ৩০০মিমি লেন্সের কারণে চিতার মুখের ছবির ক্লোজআপ নেয়া সম্ভব হয়েছে। টাইট ফ্রেম করতে না চাইলে ৩০০এর কম ফোকাল লেন্থের লেন্স দরকার হবে।

ডেনভার চিড়িয়াখানায় ভালো ছবি তোলার জন্য ৭০-২০০মিমি জুম লেন্স সুবিধা হবে। তবে টাইট ফ্রেমে ছবি তোলার জন্য যেমন প্রাণিদের পোর্ট্রেট করার জন্য ৩০০মিমি লেন্স + ১.৪এক্স এক্সটেন্ডার ভালো হবে।

৫০০মিমি থাকলে আরো ভালো।

+ There are no comments

Add yours